লাউ শাক ভাপে


এই পদটি খেতে পেলে আমি অমরত্ব অস্বীকার করতে পারি :) আমরা শাক-সব্জি রান্না করার সময় তা কাটার পরে ধুয়ে, তেলে ভাজাভাজা করে, কিংবা একরাশ জলে সেদ্ধ করে তার সর্বগুণ নষ্ট করে ফেলি, ঘ্যাট বানিয়ে তার আকৃতি প্রকৃতির স্বকীয়তা বজায় রাখতে দিইনা। লাউ শাকের এই পদটি আমরা ভাপে বানাব। তাই এটি খেতে যেমন সুস্বাদু হবে, তেমনি হবে আমাদের জন্য স্বাস্থ্যকর!

উপকরণ

লাউ শাক ভাপে বানাতে আমাদের লাগবে-
লাউ শাক-দুই কাপ, বড় বড় অংশ করে কাটা।
মিষ্টি আলু, বেগুন, কুমড়ো- আধা কাপ। সব সব্জিগুলো আলুভাজার আলুর মত করে কুচোনো।
কড়াইশুঁটি- আধা কাপ। নারকেল, পোস্ত এবং সর্ষে- এক চামচ করে বাটা।
রসুন- আধা চামচ, কুচি করা।
আদা বাটা- আধা চামচ। পেঁয়াজ- ডুমো ডুমো করে কাটা, আধা কাপ। বড়ি- এক মুঠো।
পাঁচফোড়ণ এবং হিং- এক চিমটে।
নুন, হলুদ- পরিমাণ মত। মিষ্টি- সামান্য। সর্ষের তেল- এক চামচ।
তেজপাতা, শুকনো লঙ্কা- একটি।

প্রণালী

লাউ শাক ভাপে বানাতে আমাদের মূলত ঢেকে ঢেকে বাস্পের সাহায্যে খুব কম আঁচে রান্নাটি করতে হবে। আর সেই বাস্প আসবে রান্নতে ব্যবহার করা শাক- সব্জির অন্ত:স্থ জল থেকে।
প্রথমে, শাক-সব্জি সব ভালো করে ধুয়ে যেমন বলা হয়েছে সেরকম করে কেটে নিন। কাটার পরে শাক-সব্জি কখনো ধোবেন না। তবে হ্যাঁ, বেগুন কাটার পরে না ধুলে কালো হয়ে যেতে পারে, তাই অস্বস্তি লাগলে চট করে একটু জলে চুবিয়ে নিন।
এইবারে কড়াই বা প্যানে তেল গরম করুন। বড়ি ভেজে তুলে নিন। ফোড়ণ দিন তেজপাতা, শুকনো লঙ্কা ভেঙে, পাঁচফোড়ণ, হিং, রসুন এবং পেঁয়াজ।
মাঝে মাঝে ঢাকনা খুলে নাড়িয়ে দেওয়া ছাড়া যতক্ষণ না সব্জিগুলো রান্না হচ্ছে অমন করেই ঢেকে কম আঁচে বসিয়ে রাখুন।
একটু নাড়িয়ে সুগন্ধ বেরোলে এবার সব সব্জিগুলো ঢেলে দিয়ে ভালো করে নাড়িয়ে আঁচ একদম কম করে ঢেকে দিন। দুই চামচ জলে নুন, হলুদ এবং আদা গুলে ঢাকনা খুলে দিয়ে দিন, এবং ভালো করে মেশান।
লাউশাক নরম হয়ে এলে চিনি এবং বড়ি মিশিয়ে গরম গরম খেয়ে দেখুন।
সব্জি সেদ্ধ হয়ে গেলে, কড়াইতে লাউপাতা, নারকেল-পোস্ত-সর্ষে বাটা দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে আবার মিনিট কয়েক ঢেকে রাখুন।

বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন  

    0/Post a Comment/Comments

    Stay Connected

    Business