হিংয়ের কচুরি




একটা সময় ছিল যখন বাঙালী হিং-য়ের কচুরি আর ছোলার ডালে মজে থাকত| এখন বিশ্বায়নের যুগে খাদ্যতালিকা ক্রমশ বর্দ্ধমান| হিংএর কচুরি আজ কতিপয় হাতেগোনা দোকানেই পাওয়া যায়| তবে তাতে হিংএর গন্ধ খুঁজে পাওয়া ভার| আসুন না বাড়িতেই বানিয়ে খাই|

উপকরণ

জলখাবারের হিসাবে :- হিং এর গুঁড়ো- ১ চা চামচ| বিউলির ডাল - ২৫০ গ্রাম মৌরি - এক চা চামচ আদা বাটা - এক টেবিল চামচ| কাঁচা লঙ্কাবাটা- ১ টেবিল চামচ| নুন - পরিমাণমত হলুদ - নামমাত্র চিনি- দু-চার দানা ময়দা - আন্দাজমত সাদা তেল বা ডালডা - পরিমাণমত সরষের তেল - ২ চামচ|

প্রণালী

আগের রাতে বিউলির ডালটা ধুয়ে ভিজিয়ে রাখুন| সকালে জলটা ঝরিয়ে নিয়ে মিক্সিতে বেটে ফেলুন| খুব মিহি করার দরকার নেই| আধবাটা মত হলেও হবে| এবার কড়াইতে সরষের তেল দিন| আমি সরষের তেল পছন্দ করি আপনি চাইলে সাদা তেলও দিতে পারেন| তেল গরম হলে ওতে হিং দিন| হিং বেশি দিলে তেতো লাগে| তাই পরিমাণটা সঠিক হতে হবে| এবার নাড়াচাড়া করে ওতে মৌরি ফোড়ন‚ আদাবাদা‚ কাঁচা লঙ্কাবাটাটা ও নুন‚ মিস্টি ‚ হলুদ দিয়ে দিন| নাড়াচাড়া করে এবার বাটা ডালটা ওতে দিয়ে নাড়াচাড়া করতে থাকুন যতক্ষণ না সব মশালা বাটা ডালটার সাথে মিশে যায়| দেখুন পুর তৈরি| একটু চেখে দেখুন নুন‚ ঝাল ঠিক আছে কিন| এবার ঠান্ডা করতে দিন| এই ফাঁকে ময়দাটা ময়ান দিয়ে মেখে ফেলে লেচি করে ফেলুন| একটু সাদা তেল লেচিগুলোতে মাখিয়ে দিন| একটু সবুর করুন| পুরটা ঠান্ডা হয়ে গেলে গোল্লা গোল্লা করে লেচিতে ভরে রেখে দিন| সব ভরা হয়ে গেলে এবার প্রথম যে লেচিটা ভরেছিলেন সেটা থেকে শুরু করুন বেলতে| দেখবেন পুরটা বেরোবে না| কড়াইতে তেল গরম হতে দিন| গরম গরম ভাজুন আর পরিবেশন করুন ছোলার ডালের সাথে স্পেশাল আপনার হাতে তৈরি হিংএর কচুরি| অব্শ্য আলুর দম দিয়েও পরিবেশন করতে পারেন।


    Stay Connected

    Business